Templates by BIGtheme NET
২৩ মে, ২০১৯ ইং, ৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৭ রমযান, ১৪৪০ হিজরী

রোযা ভাঙ্গার ভয়াবহ শাস্তি

প্রকাশের সময়: মে ১৫, ২০১৯, ১:০১ অপরাহ্ণ

নিউজ ডেস্ক: রোযা ইসলামের পাঁচ স্তম্ভের একটি। রোযা পালনকারীদের নিয়ে যেমন অনেক খুশির হাদিস রয়েছে ঠিক তেমনি রয়েছে রোযা পালন না কারীর ভয়াবহ শাস্তির বিধান। প্রত্যেক মুসলিমের জন্যই জানা অতি প্রয়োজন যে রোজা না রাখলে মৃত্যুর পরে কি শাস্তি হবে। কারণ রোজা ঈমানের সাথে সম্পৃক্ত ৫ টি ফরজের একটি। তাই আসুন জেনে নেই রোযা না রাখার ভয়ানক শাস্তি সম্পর্কেঃ

যদি কেউ রোযা না রাখে তবে তার জন্য ভয়াবহ কঠিন শাস্তি অপেক্ষা করছে। হযরত আবু উমামা (রা:) আনহু বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি যে তিনি বলেন, আমি ঘুমন্ত অবস্থায় ছিলাম। স্বপ্নে দেখলাম আমার নিকট দুই ব্যক্তি আগমন করলেন। উনারা আমাকে বললেন, আপনি পাহাড়ের উপরে উঠুন। আমি বললাম, আমি তো উঠতে পারবো না। উনারা বললেন, আমরা আপনাকে সহজ করে দিবো।তারপর আমি উপরে উঠলাম। যখন পাহাড়ের সমতলে পৌঁছালাম, হঠাৎ ভয়ঙ্কর আওয়াজ শুনতে পেলাম। আমি বললাম, এসব কিসের আওয়াজ? উনারা বললেন, এটা জাহান্নামীদের আর্তনাদ। তারপর উনারা আমাকে নিয়ে এগিয়ে চললেন। হঠাৎ কিছু লোক পেলাম, যাদেরকে তাদের পায়ের মাংসপেশী দ্বারা ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। এবং তাদের মুখের দুই প্রান্ত ছিড়ে ফেলা হয়েছে এবং তা থেকে রক্ত ঝড়ছে। আমি বললাম, এরা কারা? উনারা বললেন, যারা ইফতারের সময় হ্ওয়ার আগেই রোযা ভেঙ্গে ফেলে তারা। (নাউজুবিল্লাহ) [সুত্রঃ সহীহ ইবনে খযাইমাঃ ১৯৮৬; সহীহ ইবনে হিববানঃ ৭৪৪৮;]

উক্ত হাদিস শরিফ উনার ভাবার্থ এই যে, মহান আল্লাহ পাক সুবাহানাহু ওয়া তায়ালা রাসূল (সঃ)কে রোযা ভঙ্গ করার শাস্তি সম্পর্কে অবগত করেছেন। রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তিনি দেখেছেন, তাদের সেই দুরবস্থা; তাদের আকার আকৃতি ছিল বড় মর্মান্তিক এবং নিকৃষ্ট। কঠিন যন্ত্রণায় তারা কুকুর ও নেকড়ের মত চিৎকার করছে। তারা সাহায্য প্রার্থনা করছে অথচ কোন সাহায্যকারী নেই। তাদের পায়ের শেষ প্রান্তে জাহান্নামের কসাইখানার জবাই করা ছাগলের মত তাদেরকে নিম্নমুখী করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। আর তাদের নির্গত রস বেয়ে মুখভর্তি রক্ত ঝরছে। তাদের অপরাধ তারা রোযা রেখেছে কিন্তু ইফতারের সময় হওয়ার আগেই রোযা ভেঙ্গে ফেলেছে।

প্রিয় মুসলিম ভাই এবং বোনেরা, একটি বার চিন্তা করে দেখুন রোযা রেখে ইফতারের সময় হওয়ার আগেই রোযা ভেঙ্গে ফেললে যদি এত কঠিন শাস্তি হয়, তবে যারা পূর্ণ দিনই রোযা রাখে না এবং যারা পূর্ণ মাসই রোযা রাখে না তাদের শাস্তির অবস্থা কতটা ভয়াবহ এবং কঠিন হতে পারে.!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

11 − four =