Templates by BIGtheme NET
২১ আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৬ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৯ জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

যার ফাঁদে আটকে গেল মিমের ঈদ পরিকল্পনা

প্রকাশের সময়: মে ২৩, ২০১৯, ১১:২৩ পূর্বাহ্ণ

অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম মহাধুমধামেই গত বছর শুরু করেছিলেন সাপলুডু নামে একটি চলচ্চিত্রের শুটিং। ঘোষিত সময়ের মধ্যে শেষ হয় গোলাম সোহরাব দোদুল নির্মিত এ ছবির নির্মাণযজ্ঞ। মনের মতো করে ছবিটির কাজ শেষ করতে পারায় বেশ খোশ মেজাজে ছিলেন মিম। তার ভাষ্য, যখন তাকে জানানো হয়েছিল আসন্ন ঈদে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে ছবিটি, তখন থেকেই নাকি তিনি আরো বেশি উদ্বেলিত ছিলেন। শুধু তাই নয়, ঠিক এই একটি মাত্র কারণ সামনে রেখে যাবতীয় কাজ থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে রেখেছিলেন মিম।

এত কিছুর পরও যখন মিমকে শুনতে হলো এবার ঈদে সাপলুডু মুক্তি পাচ্ছে না, তখন নিশ্চয়ই তার মন খারাপের মাত্রা দ্বিগুণ হওয়ার কথা। গতকাল টকিজের মুখোমুখি হয়ে মিম সেই আক্ষেপের কথাই বললেন এবং জানালেন ঠিক কী কারণে ছবিটির মুক্তিকে সামনে রেখে নিজেকে সরিয়ে রেখেছিলেন অন্য সব কাজ থেকে। শুরুতেই বললেন, ‘সাপলুডু ছবিটি তার গল্প, নির্মাণশৈলী দিয়ে আমার ভেতর অসাধারণ এক অনুভূতি সৃষ্টি করে দিয়েছিল। ভেবেছিলাম, এ রেশ দর্শকের ভেতর পৌঁছে দিতে। তাই নিজেকে টিভি পর্দার অন্যান্য অনেক কাজ থেকে সতর্কভাবেই আড়ালে রেখেছিলাম। যেন দর্শক হঠাৎ করে নতুন এক ‘‘আমি’’কে দেখতে পায়।’ তার মানে এবারের ঈদে আপনাকে কোনো নাটকে অভিনয়ও করতে দেখা যাবে না? ‘সত্যি বলতে কী, সাপলুডু নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনা থাকায় আমি আর অন্য কোনো কিছুতে নাম লেখাইনি। অনেকেই অনেক ভালো ভালো গল্পের কাজে আমাকে অভিনয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু আমি সেসব প্রস্তাব থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে রেখেছিলাম। তবে আশা করছি, আগামী কোরবানির ঈদের কিছু কাজে যোগ দেব এবং সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

অবশ্য ভক্তকুলকে একেবারেই হতাশ করতে চাননি বিদ্যা সিনহা মিম। ঈদের সময় বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হিসেবে টিভি পর্দায় কিছুক্ষণ পর পর হাজির হবেন বলেও জানালেন। ভক্তদের আশ্বস্ত করে বললেন, ‘ঈদের ওই সময়টায় একেবারেই যে আমাকে দেখা যাবে না, তা ঠিক নয়। দারুণ দুটি বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করেছি।’ এ নিয়ে গল্পের একপর্যায়ে মিমের সামনে তুলে ধরা হয়, টিভি চ্যানেল থেকে দর্শকের প্রতিনিয়ত মুখ ফিরিয়ে নেয়ার প্রসঙ্গটি। অনেকেরই অভিযোগ মাত্রাতিরিক্ত বিজ্ঞাপনের কারণে দেশের অধিকাংশ দর্শকই নাকি এখন পারতপক্ষে টিভি চ্যানেলে প্রচারিত কনটেন্ট দেখা থেকে নিজেকে বিরত রাখেন। ‘আমারও তাই মনে হয়, টিভি চ্যানেলগুলো থেকে প্রতিনিয়ত দর্শক মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে এবং তাদের বেশির ভাগই বিনোদনের জন্য ইউটিউবকে বেছে নিচ্ছেন।’ আপনিও কী? ‘তা তো অবশ্যই। তবে আমার প্রসঙ্গটি একটু হলেও ভিন্ন। কারণ আমাকে বেশির ভাগ সময় ব্যস্ত থাকতে হয় এবং এ কারণে টিভির সামনেই বসতে পারি না। তাই সুযোগ পেলে হাতে থাকা সেলফোনের সাহায্যেই ইউটিউব ব্রাউজ করি’ বলেন মিম।

সবারই জানা মিম এর আগে দুটি আলোচিত ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেছেন। এর একটি নির্মাণ করেছেন সাজ্জাদ হোসেন দোদুল, অন্যটি অনিমেষ আইচ। ওয়েব সিরিজ দুটি হলো ‘নীল দরজা’ ও ‘বিউটি অ্যান্ড দ্য বুলেট’। বিশেষ করে নীল দরজা ওয়েব সিরিজটিতে মিমের অভিনয় নিপুণতা নিয়ে এখনো কমবেশি আলোচনা হচ্ছে। নীল দরজায় মিম অভিনয় করেছিলেন তাবাসসুম চরিত্রে। সিরিজটিতে মিমের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। সব মিলিয়ে ওয়েব সিরিজেও মিমের অবস্থান মোটামুটি ঊর্ধ্বমুখী। আর তাই টকিজের সঙ্গে গল্পের শেষ পর্যায়ে এ অভিনেত্রী আত্মবিশ্বাসী কণ্ঠে শুধু বললেন, ‘গল্প, নির্মাণ পরিকল্পনা যদি আমাকে মুগ্ধ করে, তাহলে নিয়মিত ওয়েব সিরিজে আমাকে অভিনয় করতে দেখা যাবে, এতে কোনো সন্দেহ নেই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

two + twelve =