Templates by BIGtheme NET
১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, ২৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১২ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

কেনিয়া ও শ্রীলঙ্কার অঙ্গহানি
চীনের ঋণে বাংলাদেশ কি নিরাপদ

প্রকাশের সময়: জুলাই ৩, ২০১৯, ১:৩১ অপরাহ্ণ

ভারত মহাসাগরের তীরের মোম্বাসা বন্দর থেকে রাজধানী নাইরোবি পর্যন্ত রেল লাইন নির্মাণ করতে চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত এক্সিম ব্যাংক থেকে ২৩০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ নিয়েছিল কেনিয়া। পরে যখন ঋণ শোধ করতে পারেনি কেনিয়া তখন শর্ত অনুযায়ী কেনিয়ার মোম্বাসা বন্দর চীনকে দিয়ে দিতে হয়েছে।

একইভাবে ২০১৭ সালে শ্রীলঙ্কা তাদের হাম্বানটোটা বন্দরকে ১০০ বছরের জন্য চীনের হাতে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। একে কেন্দ্র করে ভারতের সঙ্গে তখন কূটনৈতিক টানাপড়েন তৈরি হয়েছিল।

চীনের নিয়ন্ত্রণে যাওয়া এই বন্দরটি ভারতের মূল ভূখণ্ড থেকে মাত্র ১০০ মাইল দূরে। এই বন্দরের আশপাশে ইতিমধ্যে চীনের ডুবোজাহাজ আনাগোনা শুরু করেছে।

উপরের দুইটি ঘটনা উপলব্ধি করে শঙ্কায় রয়েছেন বাংলাদেশের বিভিন্ন মহলের মানুষ। বিশেষ করে বিগত বছরগুলোতে উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য চীনের কাছ থেকে বিশাল অংকের ঋণ নেয়ার পর এই আশঙ্কা আরো বেড়েছে। তবে কি বাংলাদেশও শ্রীলঙ্কা বা কেনিয়ার মতো ঝুঁকিতে রয়েছে?

বিশ্লেষকরা বলছেন, শ্রীলঙ্কা ও কেনিয়ার ক্ষেত্রে দুটি কারণে তাদের বন্দর হাতছাড়া হয়েছে। প্রথমটি হচ্ছে ঋণের শর্ত। যদি শর্তের মধ্যেই থাকে যে, ঋণ শোধ করতে ব্যর্থ হলে বন্দর বা স্থাপনা তাদের দিয়ে দিতে হবে তাহলে এমনটা হতে পারে। আরেকটি কারণ হচ্ছে ঋণ শোধ করতে না পারা। দুটোর কোন কারণ যদি বাংলাদেশের ক্ষেত্রে ঘটে তাহলে এমন পরিনতি হতে পারে।

তবে দেশের ঋণ সংস্লিষ্ট বিশ্লেষকরা আরো বলছেন, বাংলাদেশের ক্ষেত্রে এমনটি হওয়া সহজ নয়। প্রথমত বাংলাদেশ ইতিপূর্বে বিদেশ থেকে নেয়া কোন ঋণ শোধ করতে পারে নি এমনটা হয়নি। তাছাড়া ভারত ও চীনের বিদ্বেষপূর্ণ সম্পর্কের মাঝে বাংলাদেশে উভয়ের সঙ্গেই ব্যালেন্স করে সম্পর্ক রাখছে। এ অবস্থায় বন্দর দেয়ার মতো স্পর্শকাতর ব্যপারগুলো বাংলাদেশ এড়িয়ে চলবে এটাই স্বাভাবিক।

এদিকে সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চীন সফরে গেলে সাংবাদিকরা তাকে জিজ্ঞাস করেছিলেন চীনের ঋণ নিয়ে বাংলাদেশ কোন ফাঁদে পা দিচ্ছে কিনা। জবাবে শেখ হাসিনা এমন আশঙ্কা উড়িয়ে দিয়ে বলেন, বাংলাদেশ এখন বৃহত অর্থনীতির দেশ। শুধু চীন নয়, জাপানও বৃহৎ বিনিয়োগ করেছে বাংলাদেশে। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের যে প্রবৃদ্ধি তাতে ঋণের জালে জড়িয়ে যাওয়ার কোন আশঙ্কা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

sixteen − 15 =