Templates by BIGtheme NET
১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, ২৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১১ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

‘জয় শ্রীরাম’ নিয়ে যা বললেন নোবেল জয়ী অমর্ত্য সেন

প্রকাশের সময়: জুলাই ৬, ২০১৯, ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ

ভারতের রাজনীতিতে সাম্প্রতিক সংযোজন হলো ‘জয় শ্রীরাম’। ধর্মীয় এই মন্ত্রকে ক্ষমতাসীন হিন্দুত্ববাদী বিজেপি দলীয় স্লোগানে পরিণত করেছে। বিষয়টি এখানেই থেমে নেই। ‘জয় শ্রীরাম’ না বলায় মুসলিমদের পিটিয়ে হত্যার মতো ঘটনাও ঘটেছে।

এনিয়ে মুখ খুললেন নোবেল জয়ী ভারতীয় অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। তিনি বলেন, “লোকজনকে প্রহার করতে হলে এখন এসব বলা হচ্ছে।”

আনন্দবাজার জানায়, শুক্রবার বিকেলে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বক্তৃতা করেন অমর্ত্য সেন। বিষয় ছিল, ‘স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে তার স্মৃতিতে কলকাতা’।

এদিন সকালেও এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। সেখানেও বঙ্গ সংস্কৃতি এবং হিন্দুত্ববাদের ‘আস্ফালন’ নিয়ে মন্তব্য করেছিলেন অমর্ত্য সেন।

তিনি বলেন, “যখন শুনি কাউকে রিকশা থেকে নামিয়ে কিছু একটা বুলি আওড়াতে বলা হচ্ছে এবং তিনি বলেননি বলে মাথায় লাঠি মারা হচ্ছে, তখন শঙ্কা হয়। বিভিন্ন জাত, বিভিন্ন ধর্ম, বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে পার্থক্য আমরা রাখতে দিতে চাই না। ইদানীং এটা বেড়েছে।”

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের বক্তৃতায় এই নোবেল জয়ী বলেন, “আজ যখন শুনি বিশেষ বিশেষ সম্প্রদায়ের মানুষ ভীত, শঙ্কিত হয়ে রাস্তায় বের হন এই শহরে, তখন আমার গর্বের শহরকে চিনতে পারি না। এসব নিয়ে প্রশ্ন তোলা দরকার।”

বক্তৃতা শেষে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি বলেন, ‘জয় শ্রীরাম, রাম নবমী’- এসব কোনো কিছুর সঙ্গেই বাঙালির কোনো যোগ নেই। এখানে দুর্গাপুজো হয়।

অমর্ত্য সেনের মতে, এক সময় হিন্দু মহাসভা এ ধরনের সংস্কৃতির আমদানি ঘটানোর চেষ্টা করেছিল বাংলায়। বিভেদের রাজনীতির বাতাবরণ তৈরি করার চেষ্টা করেছিল। এখন বিজেপি ঠিক সেই একই উদ্দেশ্যে বাংলায় ‘জয় শ্রীরাম’ সংস্কৃতির আমদানি ঘটানোর চেষ্টা করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

9 − one =