Templates by BIGtheme NET
১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, ২৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১২ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

ছাত্রদল সংকট: আব্বাস, গয়েশ্বর, আলালকে তারেকের ধমক

প্রকাশের সময়: জুলাই ১১, ২০১৯, ১:০৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদ: ছাত্রদলের কমিটি গঠন নিয়ে সৃষ্ট সংকট সমাধানের দিকে এগুলেও শেষ মুহূর্তে আবার তা ভেস্তে গেছে। বিদ্রোহ দমনে বিক্ষুব্ধ ছাত্রদল নেতাদের দিয়ে আহ্বায়ক কমিটি গঠনের জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিলো বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে। কিন্তু তাদের ব্যর্থতায় লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বেজায় চটেছেন বলে জানিয়েছেন বিশ্বস্ত একাধিকসূত্র।

বুধবার (১০ জুলাই) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তারেক রহমান স্কাইপে যুক্ত হয়ে মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের সঙ্গে কথা বলেন। সূত্রটি বলছে, সংকট সমাধানে আহ্বায়ক কমিটি করতে তারেক রহমান দায়িত্ব দিয়েছিলেন মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে কিন্তু তারা নিজেরাই একটা সংকট তৈরী করে বসে আছে বলে তারেক রহমান তাদের ধমক দিয়েছেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সাধারণ সম্পাদকদের সমন্বয়ে গঠিত সার্চ কমিটির নেতাদের দিয়ে চলমান সংকট সম্পন্ন করতে পরামর্শ দেন তারেক রহমান। এদিকে ছাত্রদলের বিদ্রোহী নেতারা জানান, সার্চ কমিটির নেতাদের প্রতি তাদের কোনো আস্থা নেই। দায়িত্বপ্রাপ্ত সিনিয়র তিন নেতার মাধ্যমে সমস্যার সমাধানে ইতিবাচক ছিলেন তারা। তারপরও দল আগের সিদ্ধান্তে অনড় থাকায় আন্দোলনে নামতে বাধ্য হচ্ছেন তারা।

বিএনপির প্রভাবশালী এক নেতা বলেন, ছাত্রদলের কমিটি ৩ জুন বিলুপ্ত করার পর সৃষ্ট সংকট সমাধানে সার্চ কমিটি ব্যর্থ হলে মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এবং মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে দায়িত্ব দেন তারেক রহমান। তারা দ্রুত বিষয়টি সমাধানের দিকেও নিয়ে যান। কিন্তু কোন কারণে হঠাৎ গয়েশ্বর রায়, আলাল, আব্বাসকে সরানো হলো তা আমার জানা নেই। সার্চ কমিটির কর্মকাণ্ডে তাদের মনে হয়েছে, আব্বাস-গয়েশ্বর এবং সার্চ কমিটি মুখোমুখী অবস্থানে। যা দলের এবং ওই দুই নেতার জন্য সম্মানজনক নয়।’

সার্চ কমিটির একাধিক নেতা জানান, বিদ্রোহী ছাত্রদল নেতাদের সঙ্গে কথা বলতে সাবেক কয়েকজন ছাত্রনেতাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। মূলত সংকট সমাধানের কথা বলে সময়ক্ষেপণ করেছেন তারেক রহমান। অবশ্য, বিদ্রোহ না করলে ১২ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার এবং যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটিতে তাদের জায়গা করে দেয়া হবে বলে আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

সার্চ কমিটির অন্যতম নেতা বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন বলেন, ‘ক্ষুব্ধ নেতাদের বহিস্কারোদেশ প্রত্যাহার করা, আগামী দিনে দলের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনেসহ বিভিন্ন পর্যায়ে যোগ্যতার ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে। তাদের বিষয়টিও আমরা গুরুত্ব সহকারে দেখছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

4 × one =