Templates by BIGtheme NET
১১ জুলাই, ২০১৯ ইং, ২৭ আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ৭ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী

দ্রুত বিচার আইন নিয়ে জামায়াতের বিবৃতি, রাজনৈতিক মহলে নিন্দার ঝড়!

প্রকাশের সময়: জুলাই ১১, ২০১৯, ১০:০১ অপরাহ্ণ

দ্রুত বিচার আইনের মেয়াদ আরও ৫ বছর বাড়িয়ে জাতীয় সংসদে বিল পাস করায় এর বিরোধীতা করেছে মুক্তিযুদ্ধে বিরোধীতাকারী দল জামায়াতে ইসলামী। ১০ জুলাই দলটির সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান এ সংক্রান্ত একটি বিবৃতি গণমাধ্যমে পাঠান। এতে রাজনৈতিক মহলে জামায়াতকে নিয়ে নতুন করে বিতর্ক শুরু হয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, বিভিন্ন সময় অপরাধে জড়ানো নিজেদের নেতাকর্মীদের রক্ষা করতেই জামায়াত এমন অবস্থান নিয়েছে। এই আইন বাতিল হলে সবচেয়ে বেশি ফায়েদা লুটবে দলটি।

জানা যায়, ২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগেও পরে জামায়াত ও তাদের ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্রশিবির আন্দোলনের নামে সারাদেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করে। এছাড়া যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ দণ্ডিত নেতাদের বাঁচাতে বিভিন্ন সময় হরতাল ও অবরোধে পেট্রোল বোমা হামলাসহ মানুষ হত্যায় মেতে উঠেছিলো তারা। ওই সব অপরাধে দলটির অনেক নেতাকর্মী দ্রুত বিচার আইনে দণ্ডিতও হয়েছে। এখানো অনেকগুলো মামলা ঝুলে আছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, জামায়াত ও শিবিরের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে যেসব মামলা রয়েছে তার অধিকাংশই দ্রুতই বিচার আইনে করা। এখন যদি এই আইনটি বাতিল করা হয় তবে তারাই বেশি ফায়েদা লুটবে। অন্যদিকে, দ্রুত বিচার আইনে মামলা হওয়া বিভিন্ন ইস্যুতে আন্দোলনের চেষ্টা করেও জামায়াত নেতাকর্মীদের থেকে সমর্থন পাচ্ছে না। এই আইন বাতিল হলে জামায়াত নতুন করে আন্দোলনে যাওয়ার সাহস পাবে বলেও মন্তব্য করছেন রাজনৈতিক বিজ্ঞরা।

এদিকে সিনিয়র আইনজীবীরা বলছেন, জামায়াত হঠাৎ করে এমন বিষয়ে বিবৃতি দিলো যা সমর্থন যোগ্য নয়। দ্রুত বিচার আইন ব্যবস্থা ভিকটিমদের জন্য সুবিধার। ফলে তারা দ্রুত বিচার পেতে পারে। সুতরাং জামায়াতে ইসলামীর প্রতিবাদ অনর্থক ও অযৌক্তিক।

এ বিষয়ে রফিকুল ইসলাম নামে সুপ্রিম কোর্টের একজন আইনজীবী বলেন, আইন আইনের মতো চলবে। এতে হঠাৎ জামায়াতের কেন মাথাব্যথা হলো তা আমার কাছে বোধগম্য নয়। এ আইন নিয়ে তাদের বিরোধী মনোভাব ইতিবাচক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখার কোনো সুযোগ নেই। কারণ অপরাধী চায় মামলা ঝুলিয়ে রাখতে, আর মামলাকারী চায় দ্রুত বিচার। তাদের এই বিবৃতি এটাই প্রমাণ করে যে, তারা বরাবরই অপরাধপ্রবণ এবং এই প্রবণতাকে তারা দীর্ঘমেয়াদে লালন করতে চায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ten + fourteen =