Templates by BIGtheme NET
১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, ২৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১২ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

চাঁদে হাজার হাজার অনুজীব রেখে এসেছে ইসরায়েল, ছড়িয়ে পড়ার আশংকা বিজ্ঞানীদের

প্রকাশের সময়: আগস্ট ১০, ২০১৯, ৬:৫৩ অপরাহ্ণ

চলতি বছরের প্রথম দিকে চাঁদের বুকে আছড়ে পড়ে একটি ইসরায়েলি মহাকাশ যান। এই ব্যর্থ চন্দ্রাভিযানে মোটা অংকের টাকা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও চাঁদে কয়েকহাজার অনুজীব রেখে এসেছে ইসরায়েল। মার্কিন প্রভাবশালী গণমাধ্যম সিএনএন এর এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য এসেছে। এই অনুজীবটি এখন চাঁদের বুকে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা করছেন বিজ্ঞানীরা।

প্রতিবেদনে  বলা হয়, ইজরায়েলের মহাকাশযান ‘বেরেশিট’ ১১ এপ্রিল যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে চাঁদের মাটিতে আছড়ে পড়ে বিধ্বস্ত হয়। ওই যানের বিশেষ প্রকোষ্ঠে ছিল অনেক কিছু। একটি ডিভিডির মতো দেখতে ডিস্কে ভরা ছিল পৃথিবী সম্পর্কে তথ্য। বিজ্ঞানীরা নাম দিয়েছিলেন ‘লুনার লাইব্রেরি। ইসরায়েলের ওই চন্দ্র অভিযানের লক্ষ্য, মানুষের জ্ঞানের ভাণ্ডার আর পৃথিবীর জীববৈচিত্র্যকে সৌরজগতে ছড়িয়ে দেয়া।

লুনার লাইব্রেরি বা চন্দ্র গ্রন্থাগারে ভরা ছিল মানুষের ইতিহাস নিয়ে ৩ কোটি পৃষ্ঠার তথ্য। আরো ছিল মানুষের ডিএনএ। ছিল কৃত্রিম রজনের তৈরি একটি বিশেষ প্রকোষ্ঠ। সেখানে শুকিয়ে, কার্যত শীতনিদ্রায় পাঠিয়ে ভরে দেয়া ছিল কঠিন প্রাণ টারডিগ্রেড। কয়েক হাজার ডিহাইড্রেটেড টারডিগ্রেড শীতনিদ্রা থেকে জাগবে, যদি কখনো পানি বা বাতাস সংস্পর্শে আসে।

এক মিলিমিটারেরও কম দৈর্ঘ্যের প্রাণী টারডিগ্রেডকে বলে ‘ওয়াটার বেয়ার’ বা জল ভালুক। অনেকে ‘ঢেঁকিশাক শুকরছানা’ নামেও ডাকেন। টারডিগ্রেডদের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা প্রবল। কারণ, ১৫০ ডিগ্রি থেকে মাইনাস ২৭২ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত তাপমাত্রায় এরা বেঁচে থাকতে পারে। বাঁচতে পারে মহাশূন্যের একেবারে চাপশূন্য, বাতাসশূন্য অবস্থা কিংবা পৃথিবীর গভীরতম সমুদ্রখাত মারিয়ানা ট্রেঞ্চের ভয়ঙ্কর চাপেও। দীর্ঘদিন ধরে শুকনো ভুষির মতো রেখে দেয়া যায় এদের।

যুক্তরাষ্ট্রের বেকার বিশ্ববিদ্যালয়ের টারডিগ্রেড বিশেষজ্ঞ উইলিয়াম মিলার মনে করছেন, চন্দ্রপৃষ্ঠের প্রায়-চাপশূন্য অবস্থা সামলে ঠিকই টিকে যাবে তারা। কোনো দিন পানির ছোঁয়া পেয়ে জেগে উঠতেই পারে মাত্র এক মিলিমিটার আকারের আট পা বিশিষ্টা টরডিগ্রেডরা। করতে পারে বংশবৃদ্ধিও। তবে তাদের পৃথিবীতে ফেরার পথ বন্ধ বলে আশ্বস্ত করেছেন বিজ্ঞানীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

one × one =