Templates by BIGtheme NET
৩ এপ্রিল, ২০২০ ইং, ২০ চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ৯ শাবান, ১৪৪১ হিজরী

মহামারীতে হজরত ওমর (রা.) এর যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত

প্রকাশের সময়: মার্চ ১৯, ২০২০, ৪:১০ অপরাহ্ণ

বিশেষ সংবাদ: ৬৩৯ খ্রিষ্টাব্দে খলিফা হজরত ওমর রা. মদিনা থেকে সিরিয়ার সফরের উদ্দেশে রওয়ানা হলেন। সিরিয়ার ‘সারগ’ নামক অঞ্চলে পৌছানোর পর সেনাপতি আবু উবায়দাহ রা. জানান যে, সিরিয়ায় প্লেগ তথা মহামারীর প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে।

সিরিয়ায় মহামারী প্লেগ-এর প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ায় হজরত ওমর রা. সাহাবাদের কাছে পরামর্শ চান যে, তিনি সিরিয়া সফর করবেন নাকি মদিনায় ফিরে যাবেন?

সাহাবাদের মধ্য থেকে তখন সিরিয়ায় যাওয়ার পক্ষে বিপক্ষে দুই ধরনের মতামতই উঠে আসে-

এরপর হজরত ওমর রা. সিরিয়া সফর স্থগিত করে মদিনায় ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

খলিফার মদিনায় ফেরত যাওয়া দেখে সেনাপতি হজরত উবায়দাহ রা. বললেন, ‘হে আমিরুল মুমিনিন! আপনি কি আল্লাহ কর্তৃক নির্ধারিত তাকদির থেকে পলায়ন করে ফিরে যাচ্ছেন?’

এ কথা শুনে হজরত ওমর রা. বললেন-না, আমরা আল্লাহর এক তাকদির থেকে আরেক তাকদিরের দিকে ফিরে যাচ্ছি।’

এসময় হজরত ওমর রা. সেনাপতি আবু উবায়দাহকে একটি উদাহরন দেন। তিনি বলেন, ধরো পাশাপাশি দুটো মাঠ। একটি শুষ্ক অপরটি সবুজ ঘাসে সমৃদ্ধ।

এখন তুমি ঘাস সমৃদ্ধ মাঠে অথবা শুষ্ক মাঠ যেটাতেই উট চরাও কোনটাই কি আল্লাহর নির্ধারিত তকদিরের বাইরে হবে?

সেনাপতি আবু উবায়দাহ বললেন, না ।

হজরত ওমর রা. বললেন, হাতে সুযোগ থাকতে ভালো গ্রহণ করার মানে এই নয় যে, আল্লাহর তাকদির থেকে পালিয়ে যাওয়া।’

এ সময় তিনি একটি হাদিস শোনান, রাসুলুল্লাহ সা. বলেন- ‘তোমরা যখন কোনো এলাকায় মহামারী প্লেগের বিস্তারের কথা শুনো, তখন সেখানে প্রবেশ করো না। আর যদি কোনো এলাকায় এর প্রাদুর্ভাব নেমে আসে, আর তোমরা সেখানে থাকো, তাহলে সেখান থেকে বেরিয়েও যেও না।’ (বুখারি)

হজরত ওমর রা.’র মাহামারী আক্রান্ত অঞ্চলে যাওয়ার সমাধান যেভাবে এ হাদিসের মাধ্যমে এসেছিল, এ হাদিসের ওপর যথাযথ আমলই বর্তমান সময়ে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া মহামারী করোনা থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

eleven − two =