Templates by BIGtheme NET
৩ এপ্রিল, ২০২০ ইং, ২০ চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ৯ শাবান, ১৪৪১ হিজরী

কেয়ামতের লক্ষণ
বিজ্ঞান ও হাদিসের একই সতর্কবাণী!

প্রকাশের সময়: মার্চ ১৯, ২০২০, ১১:১৭ অপরাহ্ণ

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা জানিয়েছে, মহাকাশে একটি গ্রহাণু পৃথিবীতে আছড়ে পড়তে পারে। তা ঘটলে কয়েক মুহূর্তে ধ্বংস হয়ে যাবে মানবসভ্যতা। যে কথাটি রাসুল স. আরো ১৪০০ বছর আগে ভবিষ্যৎ বাণীর সাথে মিল পাওয়া যায়। নাসার এমন তথ্যের পর বিভিন্ন অঙ্গণে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

সম্প্রতি ব্রিটেনের এক্সপ্রেস নিউজ-এর খবর অনুযায়ী, নাসা জানিয়েছে, এই গ্রহাণুটি আয়তনে ৪ কিলোমিটার। প্রতি ঘণ্টায় ৩১ হাজার ৩২০ কিমি গতিতে এগিয়ে আসছে। এই গতিতে এগিয়ে আসতে থাকলে ২৯ এপ্রিল পৃথিবীর কাছে চলে আসবে। কোনওভাবে পৃথিবীর সঙ্গে সংঘর্ষ হলে গোটা মানবসভ্যতা কয়েক সেকেন্ডে ধ্বংস হয়ে যাবে। যদিও এখন পর্যন্ত এটি একবারও পড়েনি।

অন্যদিকে, নুয়াইম বিন হাম্মাদ তার আল ফিতান গন্থের ৬৩৮ নাম্বার হাদিসে উল্লেখ করেন, হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সা. এরশাদ করেছেন, যখন রমযান মাসে বিকট আওয়াজ প্রকাশিত হবে, শাওয়াল মাসে যুদ্ধের ঝংকার শুনবে, জিলকদ মাসে বিভিন্ন গোত্রের মাঝে মতপার্থক্য দেখা দিবে, জিলহজ্ব মাসে রক্তপাত হবে। তখন তোমরা কিয়ামতের জন্য প্রস্তুতি নাও।

অন্য এক হাদিসে উল্লেখ আছে, কিয়ামতের আগে কোনো এক রমজান মাসে আকাশে বিকট শব্দ হবে।এতে অনেক মানুষ বোবা, বধির, অজ্ঞান হয়ে যাবে।

এছাড়া পবিত্র কোরআন শরীফের সুরা মুলকের ১৭ নাম্বার আয়াতে আল্লাহ তাআলা বলেন, তোমার কি নিশ্চিত হয়ে গেছো যে,আসমানে যিনি রয়েছেন তিনি তোমাদের উপর পাথর নিক্ষেপ করবে না?তখন তোমার জানতে পারবে কিরূপ ছিল আমার সতর্কবাণী।

নাসার বিজ্ঞানীদের দাবি ও কোরআন এবং হাদিসের উদ্বৃতির সাথে মিল থাকায় ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন স্থানে এটি নিয়ে চঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। অনেকেই বলছেন, রাসুলের করা ভবিষ্যৎবাণী এই বছরই প্রতিফলিত হবে। কারণ চলতি বছরের ২৯ এপ্রিলই রমজান মাসের ৬ তারিখ। এদিন পৃথিবীর উপর আচড়ে পড়তে পারে গ্রহাণুটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

two × one =