Templates by BIGtheme NET
৩ এপ্রিল, ২০২০ ইং, ২০ চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ৯ শাবান, ১৪৪১ হিজরী

দিন-রাত চলছে গবেষণা
করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরিতে কে কতটা এগিয়ে

প্রকাশের সময়: মার্চ ২৪, ২০২০, ১২:১৩ অপরাহ্ণ

নতুন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে গোটা বিশ্ব একযোগে কাজ করছে। এর ভ্যাকসিন তৈরির লক্ষ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা দিন-রাত খেটে চলেছেন। তবে এতোকিছুর পরও বিজ্ঞানীরা বলেন, একটি সফল ভ্যাকসিন হাতে পেতে বিশ্বকে আরও বছর খানেক ধৈর্য ধরতে হবে।

প্রশ্ন হচ্ছে, এই সময়ে বিশ্ববাসী সুসংবাদের জন্য কাদের দিকে তাকিয়ে থাকবে? কারা এখন পর্যন্ত এই ভ্যাকসিন তৈরির পথে অনেকটা এগিয়ে গেছে?

এ বিষয়ে জেরুজালেম পোস্টের প্রতিবেদনে একটি তালিকা করা হয়। সেখানে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের কথা উল্লেখ করা হয়েছে যারা করোনার ভ্যাকসিন তৈরিতে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে।

নিচে পাঠকদের জন্য বিস্তারিত তুলে ধরা হলো :

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটসভিত্তিক জৈবপ্রযুক্তি কোম্পানি মডার্না। প্রতিষ্ঠানটি জানায়, তাদের তৈরি এমআরএনএ-১২৭৩ নামের করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন কতটা নিরাপদ ও শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে এটি কতটা সক্রিয় করতে পারে—সে বিষয়টিই এখন পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। আগামী ছয় সপ্তাহের মধ্যে এটি ৪৫ জন স্বাস্থ্যবান প্রাপ্তবয়স্কের শরীরে পরীক্ষা করা হবে।

চীনের তিয়ানজিনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ক্যানসিনো বায়োলজিকস। প্রতিষ্ঠানটির গবেষকেরা বলেন, তাদের তৈরি অ্যাড৫-এনকোভ নামের এই ভ্যাকসিন মানুষের শরীরে পরীক্ষা করার প্রাথমিক প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। উহানের টংজি হাসপাতালে ১০৮ জন স্বাস্থ্যবান স্বেচ্ছাসেবীর ওপর আগামী সপ্তাহে এ পরীক্ষা চালানো হবে।

ইসরায়েলভিত্তিক গবেষনা প্রতিষ্ঠান মিগাল। প্রতিষ্ঠানটি দাবি করে, অ্যাভিয়ান করোনাভাইরাস ও নভেল করোনাভাইরাসের মধ্যে বিদ্যমান জেনেটিক সাদৃশ্যকে ভিত্তি ধরে গত ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে তারা এ ভ্যাকসিন তৈরির পথে বড় ধরনের অগ্রগতি অর্জন করেছে। আগামী ৯০ দিনের মধ্যে তারা আনুষ্ঠানিকভাবে মানুষের শরীরে প্রয়োগ করবে।

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়াভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ইনোভিও ফার্মাসিউটিক্যালসের গবেষকদের তৈরি ভ্যাকসিনটির নাম আইএনও-৪৮০০। গবেষণাটি বর্তমানে প্রি-ক্লিনিক্যাল পর্যায়ে রয়েছে। আগামী মাসেই এই ভ্যাকসিনের ইউএস ফেজ ওয়ান ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল দিতে পারবে বলে আশা করছে প্রতিষ্ঠানটি।

জার্মান ইমিউনোথেরাপি কোম্পানি বায়োএনটেক ও আমেরিকান বড় ওষুধ কোম্পানি পিফিজার গত সপ্তাহে নতুন করোনাভাইরাসের মোকাবিলায় এমআরএনএভিত্তিক ভ্যাকসিন তৈরিতে যৌথভাবে কাজ করছে। আগামী মাসের শেষ নাগাদ তাদের তৈরি ভ্যাকসিন ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর্যায়ে উন্নীত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

eleven + 15 =