Templates by BIGtheme NET
১৩ জুলাই, ২০২০ ইং, ২৯ আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২১ জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী

টানা পঞ্চমবার ছেলেদের হারালো মেয়েরা

প্রকাশের সময়: মে ৩১, ২০২০, ২:২৬ অপরাহ্ণ

২০২০ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষার ফল ঘোষণা করেছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। এবার সম্মিলিত পাসের হার ৮২ দশমিক ৮৭। তবে টানা পঞ্চমবারের মত এবারো পরীক্ষার ফলাফলে ছেলেদের পেছনে ফেলেছে মেয়েরা।

২০১৬ সাল থেকে টানা ছেলেদের থেকে ভালো করছেন মেয়েরা। সেই পরিপ্রেক্ষিতে এ বছরও সারা দেশে ছেলেদের থেকে ২ দশমিক ৪৭ শতাংশ বেশি পাশ করেছে মেয়েরা।

রোববার শিক্ষামন্ত্রী কর্তৃক ঘোষিত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলে দেখা গেছে, এবার ছাত্রদের পাসের হার যেখানে ৮১ দশমিক ৬৩ শতাংশ, সেখানে ছাত্রীদের মধ্যে ৮৪ দশমিক ১০ শতাংশ পাস করেছে।

সারাদেশে মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৩৫ হাজার ৮৯৮ শিক্ষার্থী। পাসের হার ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ। গতবছর ৮২ দশমিক ২০ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছিল। জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১ লাখ ৫ হাজার ৫৯৪ জন। গতবারের তুলনায় এবছর পাস ও জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে।

চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ৮ লাখ ৩৩ হাজার ৮৯২ জন ছাত্র এবং ৮ লাখ ৫৬ হাজার ৬৩১ জন ছাত্রী পাস করে। পাসের হারে এগিয়ে আছে ছাত্রীরা। ছাত্রদের তুলনায় ২.৪৭ শতাংশ বেশি মেয়ে পাস করে।

এর আগে ২০১৮ সালে ছাত্রদের পাসের হার ছিল ৭৬.৭১ শতাংশ। আর ছাত্রীদের পাসের হার ৭৮.৮৫ শতাংশ। অর্থাৎ ছাত্রদের তুলনায় ছাত্রীদের পাসের হার ছিল ২.১৪ শতাংশ বেশি।

২০১৭ সালে ছেলেদের পাসের হার ছিল ৭৯.৯৩ শতাংশ এবং মেয়েদের ছিল ৮০.৭৮ শতাংশ। ২০১৬ সালে ছেলেদের পাসের হার ছিল ৮৮.২ শতাংশ এবং মেয়েদের ছিল ৮৮.৩৯ শতাংশ।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় গতবছর ৮২ দশমিক ২০ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছিল, জিপিএ-ফাইভ পেয়েছিল ১ লাখ ৫ হাজার ৫৯৪ জন। এবার ২০ লাখ ৪০ হাজার ২৮ জন শিক্ষার্থী মাধ্যমিকের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নেয়, তাদের মধ্যে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন পাস করেছে।

নয়টি সাধারণ বোর্ডে পাসের হার ৮৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ, মাদ্রাসা বোর্ডে ৮২ দশমিক ৫১ শতাংশ এবং কারিগরি বোর্ডের ৭১ দশমিক ৭০ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে।

মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ১০ লাখ ২১ হাজার ৪৯০ জন ছাত্র পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। তাদের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৮ লাখ ৩৩ হাজার ৮৯২ জন। আর ১০ লাখ ১৮ হাজার ৫৩৮ জন ছাত্রী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল, তাদের মধ্যে পাস করেছেন ৮ লাখ ৫৬ হাজার ৬৩১ জন।

এ বছরের এসএসসি পরীক্ষা শুরু হয় ৩ ফেব্রুয়ারি, শেষ হয় ২৭ ফেব্রুয়ারি। ২৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চের মধ্যে ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। সারাদেশে ১০টি শিক্ষাবোর্ডের আওতায় এবারের এসএসসি পরীক্ষায় ৩ হাজার ৫১২টি কেন্দ্রে মোট ২০ লাখ ২৮ হাজার ৮৮৪ পরীক্ষার্থী অংশ নেয়।

মাদরাসা বোর্ডের দাখিল পরীক্ষায় অংশ নেয় দুই লাখ ৮১ হাজার ২৫৪ জন। ছাত্রী অংশ নেয় এক লাখ ৪৭ হাজার ১১৬ জন। ছাত্রের তুলনায় ১২ হাজার ৯৭৮ জন বেশি। এছাড়া কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষায় এক লাখ ৩১ হাজার ২৮৫ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে।

এবার ঢাকা বোর্ডে পাশের হার ৮২.৩৪ শতাংশ। যশোর বোর্ডে ১৩ হাজার ৭৬৪ জন শিক্ষার্থী জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন। এ বোর্ডে পাশের হার ৮৭.৩১%। আর বরিশাল বোর্ডে জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন ৪,৪৮৩ জন। সেখানে পাশের হার ৭৯.৭০%।

এছাড়া, কুমিল্লা বোর্ডে ১০ হাজার ২৪৫ জন জিপিএ ৫ পেয়েছেন আর পাশের হার ৮৫.২২%। ময়মনসিংহ বোর্ডে ৭ হাজার ৪৩৪ জন জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন আর পাশের হার ৮০.১৩%।

সিলেটে জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন ৪ হাজার ২৬৩ জন আর এ বোর্ডে পাশের ৭৮.৭৯%। দিনাজপুরে ১২ হাজার ৮৬ জন জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন। আর, এ বোর্ডে পাশের হার ৮২.৭৩%।

রাজশাহীতে এবার অন্যান্য বোর্ডের তুলনায় পাশের হার জিপিএ-৫ এর সংখ্যা তুলনামূলক বেশি। বোর্ডটিতে এবার পাশের হার ৯০.৩৭% আর জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২৬ হাজার ১৬৭ জন ছাত্র-ছাত্রী।

চট্টগ্রাম বোর্ডে এবার পাশের হার ৮৪.৭৫%। এছাড়া, এই বিভাগীয় বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৯ হাজার ৮ জন শিক্ষার্থী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

two × three =