Templates by BIGtheme NET
১৩ জুলাই, ২০২০ ইং, ২৯ আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ২১ জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী

করোনা মোকাবেলায় শেখ হাসিনাকে কেন সফল বলছে ‘ফোর্বস’

প্রকাশের সময়: জুলাই ১, ২০২০, ৫:০১ অপরাহ্ণ

করোনা মোকাবেলায় গত এপ্রিলে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর ৫ দফা প্রস্তাব বিশ্বব্যাপী প্রসংশিত হয়। সেই বক্তব্যে বৈশ্বিক অব্যবস্থাপণার চিত্রটি তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা নামের অজানা শত্রু আমাদের ব্যবস্থাপনার ত্রুটিগুলো দেখিয়ে দিচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীর এমন সমালোচনা দৃষ্টি কাড়ে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের। একই সঙ্গে করোনা মোকাবেলায় তার প্রস্তাবগুলোও প্রসংসিতও হয়।
তবে প্রধানমন্ত্রী সেখানে যেসব প্রস্তাব রেখেছিলেন সেগুলোর আঞ্চলিক প্রয়োগ তিনি নিজেই করেন কিনা তা হয়তো দেখার অপেক্ষায় ছিলেন অনেকেই। তবে সেই অপেক্ষার পালা শেষ হয়েছে।

সম্প্রতি করোনা মোকাবিলায় সফল নারী নেতৃত্বের তালিকায় শেখ হাসিনাকে স্থান দিয়েছে বিশ্বের অর্থনীতি বিষয়ক জনপ্রিয় ম্যাগাজিন ‘ফোর্বস’। গত ২৪ এপ্রিল ফোর্বসের লেখক আভিভাহ উইটেনবার্গ-কক্স যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশের নেয়া পদক্ষেপের একটি তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরেন।

প্রবন্ধে বলা হয়, প্রায় ১৬ কোটিরও বেশি মানুষের এই দেশে দুর্যোগ কোনো নতুন ঘটনা নয়। আর এই করোনা মোকাবিলার ক্ষেত্রে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করেননি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে করোনাভাইরাস সংক্রমণের শুরুতেই বাংলাদেশ যে পদক্ষেপগুলো গ্রহণ করেছে তা এখনোও কার্যকর করতে পারেনি যুক্তরাজ্য।

শেখ হাসিনা ফেব্রুয়ারির শুরুতেই চীনে থাকা বাংলাদেশিদের দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আসার পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।
মার্চের শুরুতে প্রথম সংক্রমণের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেন এবং কম গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোকে অনলাইনে কার্যক্রম পরিচালনার নির্দেশ দেন।

তিনি দেশের সব আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনা রোগী শনাক্ত করতে স্ক্রিনিংয়ের জন্য মেশিন ব্যবহার করে কয়েক হাজার মানুষকে দ্রুত কোয়ারেন্টাইনের নির্দেশ দেন, যা এখনো যুক্তরাজ্য কার্যকর করতে পারেনি।

এদিকে শেখ হাসিনার প্রশংসা করেছে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামও। গত ৪ জুন ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন অ্যান্ড ইমিউনাইজেশন আয়োজিত ভ্যাকসিন সামিটে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে তিনি দ্রুত ভ্যাকসিন আবিষ্কারের আহ্বান জানান এবং সংস্থাটির তহবিল বাড়াতে অনুদান দিতে বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানান। ইতিমধ্যে ‘গ্লোবাল সিটিজেন’ তহবিলে ৫০ হাজার মার্কিন ডলার প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে গত ২৫ মে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং এর সঙ্গে ফোনালাপের পর চীনের বিশেষজ্ঞ দল বাংলাদেশে আসে। এবং চীন করোনার ভ্যাকসিন আবিস্কার করলে বাংলাদেশকে সবার আগে সরবরাহ করবে বলে নিশ্চয়তাও দেয়।

প্রধানমন্ত্রীর একান্ত রাজনৈতিক দক্ষতা ও সুদূরপ্রসারী চিন্তাভাবনার কারনেই এ অর্জনগুলো সম্ভব হয়েছে বলে মনে করে ফোর্বস ম্যাগাজিন।

তথসূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

sixteen − 16 =