Templates by BIGtheme NET
২০ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৭ বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৭ রমজান, ১৪৪২ হিজরি

মুক্তিযোদ্ধাদের অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর নাম না নেয়ায় সম্মাননা প্রত্যাখ্যান

প্রকাশের সময়: মার্চ ২, ২০২১, ৮:৫৮ অপরাহ্ণ

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষ্যে অর্ধশতাধিক মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা দিতে গত ১ মার্চ রাজধানীর প্রেসক্লাবে একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পুরো অনুষ্ঠানে একবারও বঙ্গবন্ধুর নাম উচ্চারণ করেননি আয়োজকরা। আর এ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধারা।

এ সময় ক্ষুব্ধ হয়ে সম্মাননা প্রত্যাখ্যান করেন ইসহাক খান নামের একজন মুক্তিযোদ্ধা। তিনি অভিযোগ করেন, এখানে ইতিহাসকে ভিন্নভাবে উপস্থাপনের পাঁয়তারা চলছে। চার ঘণ্টার অনুষ্ঠানে একবারও বঙ্গবন্ধুর নাম উচ্চারণ করা হয়নি। অথচ যুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর কাছ থেকেই মুক্তিযোদ্ধারা অনুপ্রেরণা পেয়েছিলেন।

অনুষ্ঠানে ইসহাক খানের বক্তব্যের সঙ্গে সব মুক্তিযোদ্ধাই একমত পোষণ করেন। তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধের অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধুকে বিতর্কের ঊর্ধ্বে রাখতে হবে।

আবুল হাসানাত নামে একজন মুক্তিযোদ্ধা বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকেই আমরা মাকে ছেড়ে যুদ্ধের মাঠে গিয়েছিলাম। তার একটাই কথা ছিল জয় বাংলা। যা যুদ্ধ করতে আমাদের অনেক প্রেরণা যুগিয়েছে। সেই অনুপ্রেরণার জন্যই আমরা মুক্তিযুদ্ধের লাল সবুজের পতাকা আনতে সক্ষম হয়েছি। তাই যেকোনো কাজেই বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করা উচিৎ।

এ সময় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, হয়তো জয় বাংলা স্লোগান রাজনৈতিক দৃষ্টিকোন থেকে দিতে না পারে কিন্তু বঙ্গবন্ধু ছিলেন সমস্ত বিতর্কের ঊর্ধ্বে। বাংলাদেশের সাথে বঙ্গবন্ধু থাকবেন চিরকাল। এখানে তাকে ছাড়া ভাবার কোনো সুযোগ নেই।

উল্লেখ্য, ভাসানী অনুসারি পরিষদ, গণসংহতি আন্দোলন, ছাত্র যুব ও শ্রমিক অধিকার পরিষদ, রাষ্ট্র চিন্তা নামের চারটি সংগঠন মিলে আয়োজন করে এই মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা অনুষ্ঠান। সেখানে উপস্থিত ছিলেন কোটা আন্দোলনের নেতা ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

eleven + ten =