Templates by BIGtheme NET
২০ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৭ বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৭ রমজান, ১৪৪২ হিজরি

দামের ঊর্ধ্বগতি রোধে ১০ শতাংশ কমছে চাল আমদানি শুল্ক

প্রকাশের সময়: মার্চ ৩, ২০২১, ৫:২৪ অপরাহ্ণ

চালের সরবরাহ বাড়াতে ও বাজার স্থিতিশীল রাখতে চালের আমদানি শুল্ক আরও ১০ শতাংশ কমানোর প্রস্তাব দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত প্রস্তাব জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) পাঠানো হয়েছে। অর্থ বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সম্মতিসাপেক্ষে শিগগির প্রজ্ঞাপন জারি করবে তারা।

চলতি বছর দেশে বোরো ও আমনের বাম্পার ফলনের পরও চালের দাম বাড়তে থাকে অস্বাভাবিক হারে। চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে বেসরকারি খাতে আমদানির সুযোগ উন্মুক্ত করে সরকার। গত ২৭ ডিসেম্বর বেসরকারিভাবে চালের আমদানি শুল্ক আগের ৬২.৫০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ নির্ধারণ করে সরকার। এতে বেসরকারিভাবে চাল আমদানিতে শুল্ক কমানো হয় ৩৭.৫ শতাংশ। আমদানি শুল্ক কমানোর পর চাল আনার হিড়িক পড়ে ব্যবসায়ীদের মধ্যে।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্যানুযায়ী, সরকারি গুদামে ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছয় লাখ ৪৭ হাজার ১০ টন খাদ্যশস্য মজুত আছে। এর মধ্যে চাল পাঁচ লাখ ৩৮ হাজার ৫৯ টন এবং গম এক লাখ আট হাজার টন। গত বছর এই সময় মজুত ছিল ১৮ লাখ ২৭ হাজার ৯৮ টন। এর মধ্যে চাল ১৪ লাখ ৬৬ হাজার ৯৮ টন এবং গম তিন লাখ ৬১ হাজার টন। অর্থাৎ, চালের মজুতের পরিমাণ গত বছরের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ কম।

বিদ্যমান পরিস্থিতিতে গত সপ্তাহে চাল ব্যবসায়ী, আমদানিকারক, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সহ স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে ভার্চুয়ালি বৈঠক করছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। ওই বৈঠকে আমদানি শুল্ক আরও ১০ শতাংশ কমানোর প্রস্তাব করে সারসংক্ষেপ তৈরি করে খাদ্য অধিদপ্তর। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত প্রস্তাবটি এনবিআরে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা জানান, চালের আমদানি শুল্ক ২৫ শতাংশসহ অন্যান্য খরচ দিয়ে পড়ে প্রায় ২৭ শতাংশ। এ থেকে ১০ শতাংশ কমানো হলে চালের সরবরাহ বাড়বে। চালের দাম না কমলেও তা স্থিতিশীল হবে। এ কারণেই চালের আমদানি শুল্ক কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। এখন এনবিআর অর্থ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলাপ করে কমানোর বিষয়টি বিবেচনা করে জিও জারি করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

ten + 13 =