Templates by BIGtheme NET
২০ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৭ বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৭ রমজান, ১৪৪২ হিজরি

দূরপাল্লায় ‘দ্বিগুণ’ ভাড়া আদায়!

প্রকাশের সময়: এপ্রিল ২, ২০২১, ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ

শাহেদ শফিক

করোনা মহামারির কারণে দেশের গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়ায় অর্ধেক যাত্রী বহনের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। কিন্তু সরকারের এই নির্দেশনা মানছে না পরিবহনগুলো। রাজধানী ঢাকার পাশাপাশি দূরপাল্লার যানবাহনগুলোতে এই নির্দেশনা অমান্য করতে দেখা গেছে। কোথাও কোথাও গণপরিবহনে ৬০ শতাংশের পরিবর্তে দ্বিগুণ ভাড়া আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভাড়া বাড়ার প্রথম দিন বুধবার (৩১ মার্চ) ঢাকা থেকে মাগুরা যাওয়া জন্য টিকিটি কেটেছেন সাদ আহমেদ। তিনি জানান, সাধারণ সময়ে এই পথে নন এসি বাসের ভাড়া ৪০০ টাকা। সেক্ষেত্রে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির কারণে প্রতিজনের ভাড়া হওয়ার কথা ৬৪০ টাকা। ‍দুই জনের ভাড়া হবে ১২৮০ টাকা। কিন্তু ওই রুটে চলাচলকারী পূর্বাশা পরিবহন ৪০০ টাকার ভাড়া শতভাগ বাড়িয়ে আদায় করছে জনপ্রতি ৮০০ টাকা।

সাদ আহমেদ বলেন, ‘বুধবার জরুরি কাজে আমার স্ত্রীর বোনকে গ্রামের বাড়িতে পাঠানোর জন্য গাবতলী টার্মিনালে যাই। সেখানে গিয়ে দেখি, ৪০০ টাকার টিকিট ৮০০ টাকা করে বিক্রি করা হচ্ছে। পরিস্থিতি এমন যে, তাদের সঙ্গে কথাই বলা যায় না। ব্যাপারটা এমন যেন নিলে নেন, না নিলে না নেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঢাকা- মাগুরা রুটে সোহাগ পরিবহনের এসি (স্কানিয়া) গাড়ির ভাড়া ১২০০ টাকা। কিন্তু বুধবার আদায় করা হয়েছে ২৪০০ টাকা করে। এত বড় নৈরাজ্য চলছে অথচ কেউ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি।’ তবে পাশাপাশি দুই আসনে কোনও যাত্রী নেওয়া হয়নি বলেও জানান তিনি।

একই অভিযোগ পাওয়া গেছে ঢাকা-নোয়াখালী রুটেও। স্বাভাবিক সময়ে এই রুটে চলাচলকারী হিমাচল পরিবহনের ভাড়া ৩৫০ টাকা। কিন্তু বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) যাত্রীপ্রতি ৭০০ টাকা করে আদায় করেছে তারা।

রাজধানীতেও একই চিত্র দেখা গেছে। ওবায়দুর সাঈদ নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘‘সকালে কলাবাগান থেকে শিক্ষাবোর্ড এলাকায় যাই টিউশনিতে। হেঁটে-বাসে, দু উপায়েই যাতায়াত করে থাকি। বাসে গেলে ৫-১০ টাকা দিলেই হয়। আজকেও (বৃহস্পতিবার) উঠলাম বাসে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক সিট ফাঁকা রেখেই চলছে বাস। ভালো উদ্যোগ। নামার সময় বাঁধে বিপত্তি। ভাড়া দ্বিগুণ। বললাম, ৬০ শতাংশ বেশি নেবেন। কন্টাক্টর বলে— ‘না ডাবল।’ সে বলেই যাচ্ছে ডাবল। যুক্তিতে যখন পরাস্ত তখন বলে— ‘না ৭০ শতাংশ।’ আমি কইলাম, ১০ টাকায় যাই। এই নাও ২০ টাকা রেখে ৫ টাকা দাও। ফেরত দিলো ৫ টাকা।’’

তিনি আরও বলেন, ‘‘একইভাবে দুপুরের দিকে শিক্ষাবোর্ড থেকে ‘ঠিকানা’ বাসে উঠলাম, যাবো যাত্রাবাড়ী। হেল্পার বলেন, ‘ভাড়া ৩০ টাকা।’ আমি তাকে ১০ টাকার কথা জানাই। সে বললো— ‘ডাবল ভাড়া।’ আমি বললাম, ভাড়া ৬০ শতাংশ বেড়েছে। ১৫ টাকা রাখো। সে মানবেই না। বহু অনুরোধ করে ১৫ টাকা দিলাম।’’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির একজন নেতা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বৃহস্পতিবার ও বুধবার দেশের বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ আমরা শুনেছি। কোথাও কোথাও যাত্রীদের সঙ্গে মারামারিও হয়েছে। আমরা বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখছি। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি, এমন বেশ কয়েকটি কোম্পানিকে সতর্ক করা হয়েছে।

এদিকে বেঁধে দেওয়া ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়কারী এবং নির্দেশনা প্রতিপালনে ব্যর্থ পরিবহনের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বিআরটিএ এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) তিনি তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে এ কথা জানান।

কাদের বলেন, ‘করোনা সংক্রমণের চলমান প্রেক্ষাপটে সরকার জনস্বার্থে শর্তসাপেক্ষে গণপরিবহনের ভাড়া সমন্বয় করেছে। তবে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে, অনেকে সরকারি নির্দেশনা মেনে চললেও আবার অনেকেই মানছেন না। অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করারও অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। আমরা এ বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছি।’

যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা খবর পাচ্ছি অনেক জায়গা থেকে, অনেক জায়গায় ৬০ শতাংশের পরিবর্তে ডাবল ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। আমরা বলতে চাই, সরকার করোনাকালে পরিবহন সেক্টরে কোনও প্রকার ভুতর্কি না দিয়ে, যাত্রী সাধারণের সঙ্গে কোন প্রকার আলাপ-আলোচনা না করে, মালিকদের প্রস্তাব মতো জনগণের ওপরে একচেটিয়া পরিবহনের ভাড়া ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি করেছে, যা খুবই অযৌক্তিক। সরকার আগের মতো যত সিট তত যাত্রী নীতি অবলম্বন করতে পারতো।’

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, ‘অভিযোগ পেলে আমরা অবশ্যই ব্যবস্থা নেবো। অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে কঠোরভাবে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। সড়কে ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

13 + fifteen =