Templates by BIGtheme NET
১২ জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১ জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

খালেদা ইস্যুতে ক্ষুব্ধ তারেক, খুশি সিনিয়র নেতারা!

প্রকাশের সময়: মে ১২, ২০২১, ৭:২৬ অপরাহ্ণ

করোনায় আক্রান্ত বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর আলোচনা চলছে। ইতোমধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে করা আবেদন খারিজ করা হয়েছে। যার মাধ্যমে বিএনপি এই নেত্রীর বিদেশ যাওয়ার পথ প্রাথমিকভাবে বন্ধ হয়ে গেল। এতে বিএনপি’র সিনিয়র নেতারা খুশি হলেও ক্ষেপেছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

জানা যায়, গতবছর সরকারি নির্বাহী আদেশে বেগম জিয়ার মুক্তির পর থেকেই তাকে বিদেশ নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন তারেক রহমান। তার পরিকল্পনা ছিল, বেগম জিয়াকে দেশের বাইরে নেওয়ার পরই সরকারবিরোধী আন্দোলন জোরালো করার জন্য দলের নেতাদের নির্দেশ দিবেন। কিন্তু সরকার থেকে কোনভাবেই বিদেশ নেওয়ার অনুমতি পাচ্ছিলেন না। সবশেষ করোনা আক্রান্ত হওয়ার অজুহাতে খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার চেষ্টা করেন তিনি।

সূত্র বলছে, সরকার প্রথমদিকে বেগম জিয়াকে বিদেশে পাঠানোর বিষয়ে ইতিবাচক ছিল। কিন্তু বেগম জিয়াকে লন্ডনে পাঠালে ঈদের পর দেশে অরাজক পরিস্থিতি তৈরি প্রস্তুতি নিচ্ছিল বিএনপি। সে ক্ষেত্রে হেফাজতে ইসলামের সরকার বিরোধী নেতাদের সাথে একাধিকবার বৈঠক হয়েছে বলেও জানা যায়। রিমান্ডে থাকা হেফাজত নেতাদের থেকে এমন তথ্য জানতে পারে প্রশাসন। তাই বেগম জিয়াকে বিদেশে পাঠানোর সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে সরকার।

এদিকে, বিএনপি’র একটি অংশ খালেদাকে বিদেশে পাঠানোর সমর্থন করলেও সিনিয়রদের বড় অংশ চাচ্ছেন না খালেদা জিয়া বিদেশে যাক। বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থা খারাপ থাকায় তারা মনে করছেন, যে কোন সময় তার মৃত্যু হতে পারে। সে ক্ষেত্রে মৃত্যুর দায় সরকারের উপর দেওয়ার জন্যই তারা বিএনপি’র এই নেত্রীকে বিদেশে পাঠানোর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন।

এ বিষয়ে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, আমরাতো বেগম জিয়াকে দেশের বাইরে পাঠানোর বিষয়ে একমত না। পরিবারের পক্ষ থেকে বেগম জিয়াকে বিদেশে পাঠানোর অনুমতির জন্য আবেদন করতে বলা হয়েছিল। সেজন্য করা হয়েছে।

জানা যায়, বেগম জিয়ার বিদেশে যাওয়ার অনুমতির ব্যাপারে ভূমিকা রাখতে না পারায় বিএনপি নেতাদের উপর ক্ষুব্ধ হয়েছেন তারেক রহমান। যদিও বেগম জিয়াকে সরকার বিদেশে যেতে না দেওয়ায় বিএনপি’র দীর্ঘমেয়াদী লাভ রয়েছে বলে মনে করেন সিনিয়ররা।

বিএনপির একজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়া বিদেশে গেলে বিএনপি`র আর কিছুই থাকত না। বিএনপি একটা নামগোত্রহীন রাজনৈতিক দলে পরিণত হতো। কিন্তু এখন বেগম খালেদা জিয়াকে যখন অনুমতি দেওয়া হয়নি তখন আমরা এটি নিয়ে যেমন আন্দোলন করার সুযোগ পাবো পাশাপাশি এটি জনমনে সরকার বিরোধী একটি মনোভাব তৈরি করবে। এটাকে যদি আমরা পুঁজি করে কিছু জনগণের কাছে যেতে পারি তাহলে জনগণের সহানুভূতি পাবো এবং দলকে সংগঠিত করতে পারবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

4 + one =