Templates by BIGtheme NET
২১ আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৬ ভাদ্র, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১২ মহর্‌রম, ১৪৪৩ হিজরি

প্লাসিবো ইফেক্ট :দাঁতের পোকা ফালাই, সাপের বিষ সারাই

প্রকাশের সময়: আগস্ট ২১, ২০২১, ৮:৩৬ অপরাহ্ণ

একটা সময় ছিল, যখন হাতুড়ে ডাক্তাররাই মানুষের বিভিন্ন রোগব্যাধির চিকিৎসা করতো। গ্রাম বাংলার লাখ লাখ মানুষ এসব চিকিৎসায় উপকৃত হয়েছেন বলেও শোনা যায়। কিন্তু কোন বৈজ্ঞানিক গবেষণা ছাড়াই কিভাবে এসব ঔষধে রোগের উপশম হতো সে তথ্য জানেনা কেউ।

অনেক সময় দেখা যেত হাতুড়ে চিকিৎসক বা বেদেরা রোগীরমুখ থেকে পোকা বের করছেন আর রোগীর ব্যথাও কমে যাচ্ছে। বস্তুত চিকিৎসা বিজ্ঞানমতে দাঁতে পোকা না থাকলেও জীবানু থাকতে পারে। যা হাত দিয়ে বের করে আনা মোটেই সম্ভব নয়।
কিন্তু রোগী যখন দেখতো তার দাঁতের ভেতর থেকে পোকা বের করে আনা হয়েছে, তখন তিনি একটা মানসিক প্রশান্তি পান এবং তার মনে ব্যথা কমে যাওয়ার অনুভূতি সৃষ্টি হয়। মনোবিজ্ঞানের ভাষায় একে বলে ‘প্লাসিবো ইফেক্ট’।

‘প্লাসিবো ইফেক্ট’ হচ্ছে রোগীকে দক্ষতার সাথে এমন চিকিৎসা দেওয়া, যার সঙ্গে বাস্তবে রোগের কোনো সম্পর্কই নেই। কোনো সম্পর্ক না থাকা সত্ত্বেও বেশিরভাগ সময় রোগী সেই ওষুধ বা ব্যবস্থাপনার কারণে সুস্থতা লাভ করে অথবা ভালো বোধ করে।

প্লাসিবো ইফেক্ট নিয়ে নিউজিল্যান্ডের ভিক্টোরিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি পরীক্ষা করা হয়েছিলো । সেখানে বেশকিছু ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ঝাঁঝালো টনিকের সাথে লেবুর রস মিশিয়ে খাওয়ানো হয় এবং তাদের বলা হয় এটি ভদকা।

অবাক করা বিষয় হলো, পরীক্ষা শেষের প্রশ্নোত্তর পর্বে বেশিরভাগ শিক্ষার্থীই নিজেদেরকে মাতাল হিসেবে দাবি করে। তাদের শরীরে নানা রকম মাতলামির লক্ষণও দেখা দেয়। অথচ তাদের পানীয়তে কোন অ্যালকোহল ছিল না।

আসলে পুরো ব্যপারটাই মানসিক। কথায় আছে, মনের জোরই বড় জোর। এক্ষেত্রে এটিই সত্য প্রমাণিত হয়েছে এবং এই বিষয়টিকেই বলা হয় প্লাসিবো ইফেক্ট।

বিশেষজ্ঞরা বলেন দেশের হাতুড়ে চিকিৎসকদের বেলায়ও এই ঘটনা ঘটে। সাধারন রোগীরা এটিকে উপশম হয়েছে মনে করলেও রোগটি আসলে নির্মুল হয় না। এবং একসময় গুরুতর হয়ে দেখা দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

one × 2 =