Templates by BIGtheme NET
৩ অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৫ সফর, ১৪৪৩ হিজরি

বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধির ধারাকে “ইতিবাচক বলে” আখ্যা দিয়ে প্রতিবেদন স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডের

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ৩, ২০২১, ১২:৫৩ অপরাহ্ণ

চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধির হার দাঁড়াতে পারে ৭ দশমিক ২ শতাংশ। মূলত রপ্তানি বাজার, প্রবাসী আয়ে চাঙাভাব ও সরকারি বিনিয়োগের ওপর ভর করে এই প্রবৃদ্ধি হতে পারে। তবে ব্যবসা-বাণিজ্যের সক্ষমতা বাড়াতে আমদানি–রপ্তানির খরচ কমাতে হবে।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে এক প্রতিবেদনে এই পূর্বাভাস দিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নানা বাধা বিপত্তি পেরিয়ে বাংলাদেশের অর্থনীতি এতদূর এসেছে। অতীতের মত রপ্তানিমুখী শিল্পের উপর ভর করেই এগিয়ে যাবে। যেটা হবে প্রবৃদ্ধি ও কর্মসংস্থানের মূল উৎস। তবে প্রতিযোগীতা সক্ষমতা অর্জনে বাংলাদেশকে উৎপাদনশীলতা বাড়াতে হবে।
২০২৬ সালে শুল্ক সুবিধা উঠে গেলে বাংলাদেশের রপ্তানি ১৪ শতাংশ কমে যেতে পারে। বাংলাদেশের প্রতিদ্বন্দ্বী ভিয়েতনাম ইতিমধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ (ইইউ) আরও কয়েকটি দেশের সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি করে ফেলেছে। ফলে প্রতিযোগিতা টিকে থাকতে বাংলাদেশকে মুক্তি বাণিজ্য চুক্তিসহ সক্ষমতা দিয়ে এগিয়ে যেতে হবে।

বিশ্বব্যাংকের এক জরিপে দেখা গেছে, প্রযুক্তি গ্রহণে ২৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হলে প্রত্যেক কর্মীর উৎপাদনশীলকা ৩ শতাংশ বাড়বে।

তবে করোনা ভাইরাসের প্রভাব কাটিয়ে বাংলাদেশের অর্থনীতিক প্রবৃদ্ধির ধারা যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তা “ইতিবাচক বলে” আখ্যা দেওয়া হয়েছে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের প্রতিবেদনে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

13 − eight =