Templates by BIGtheme NET
৯ অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২৪ আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২ রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

২০৪৮ সালের মাস্টারপ্ল্যান নিয়ে এগোচ্ছে জামায়াত !

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ৯, ২০২১, ৫:৪৬ অপরাহ্ণ

নিবন্ধন হারালেও মাস্টারপ্ল্যান নিয়ে এগোচ্ছে জামায়াত। পরিকল্পনার আলোকে এককভাবে ২০৪৮ সালে ক্ষমতায় যেতে চায় দলটি। বিরুদ্ধ পরিস্থিতিতে টিকে থাকা ও গোপন এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ছাড়াও বিএনপি, হেফাজতে ইসলামসহ বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে সংগঠনের নানা পর্যায়ে সদস্যকে ছদ্মবেশে ঢোকানো হচ্ছে।

এরই মধ্যে নানা সংগঠনে ঢুকে জামায়াতের এজেন্ট হিসেবে কাজ করছে। আন্দোলনের সময় ভূমিকা রাখতে বিভিন্ন ট্রেড ইউনিয়নে ঢুকেছে তাদের কর্মীরা। এ ছাড়া ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে সরকারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডকে বিতর্কিত করতে আলাদা বাহিনী রয়েছে তাদের।

পুলিশ হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদে জামায়াতের ৯ নেতাকর্মী এসব তথ্য দিয়েছেন বলে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ–ডিবি জানিয়েছে।

তারা জানান, জামায়াতের ফান্ডের একটি বড় অংশ বিদেশি বিভিন্ন সূত্র থেকে আসে। এ ছাড়া দেশেও তাদের অনেক ব্যবসা রয়েছে। আবার অনেক এনজিও থেকেও ফান্ড আনা হচ্ছে।

জামায়াত পরিচালিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও বাড়ানোর পরিকল্পনা তাদের। আবার দীর্ঘ দিন ধরে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে তরুণ প্রজন্মকে সংগঠনে ভেড়াচ্ছেন তারা।

লন্ডনে সংগঠনটির অনেক নেতাকর্মী ও শুভানুধ্যায়ী রয়েছে। নানা সময় ৯০০-র বেশি সদস্যকে জামায়াত লন্ডন পাঠিয়েছে। সেখানে বসে তারা সংগঠনটির অ্যাসাইনমেন্ট পালন করছে। দেশে কোণঠাসা জামায়াতের প্রভাববলয় এখন লন্ডনকেন্দ্রিক।

ডিবির তদন্ত সংশ্নিষ্টরা জানান, ২০৪৮ সালে ক্ষমতায় যেতে সরকারি-বেসরকারি ২০-২৫টি সেক্টরে অন্তত দুই লাখ দলীয় মনোভাবাপন্ন সদস্য ঢোকানোর পরিকল্পনা রয়েছে জামায়াতের।

গত কয়েক বছর ধরে প্রকাশ্যে জামায়াতের তেমন কোনো রাজনৈতিক তৎপরতা না থাকলেও দেশের বিভিন্ন পর্যায়ের সাংগঠনিক ইউনিট চাঙ্গা রাখতে গোপন তৎপরতা দলটির রয়েছে। ছাত্রলীগের মধ্যে নিজস্ব নেতাকর্মীদের প্রবেশ করানোর কথা হাইকমান্ড থেকে বলা হয়।

এছাড়াও প্রযুক্তির অপব্যবহার করে ফেসবুক, ইউটিউব, টুইটারসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বঙ্গবন্ধু পরিবার, সরকার, বিচার বিভাগের মতো স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে গুজব ছড়াচ্ছে তাদের শক্তিশালী ‘সাইবার টিম’ ।

আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বলছেন, এ দুর্বৃত্তরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে দেশের বিরুদ্ধে বানোয়াট ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে এমন সব গাল-গল্প তৈরি করছে যার কোন বাস্তব ভিত্তি নেই। সবাইকেই চিহ্নিত করা গেলেও বিদেশে থাকায় তাদের বিষয়ে অনেক ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছিল না।

এবার বিদেশে অবস্থানরত চিহ্নিত সাইবার অপরাধীদের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ যাবে ইন্টারপোলে। পুলিশ সদর দফতরসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতরগুলো এ বিষয়ে কাজ শুরু করছে।

পাশাপাশি দেশের প্রচলিত আইনে তাদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোক করাসহ আন্তর্জাতিকভাবে বিভিন্ন দেশকে সঙ্গে নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

three + one =