Templates by BIGtheme NET
১২ অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২৭ আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৫ রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

এবার ২য় পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য জায়গা খুঁজছে সরকার

প্রকাশের সময়: অক্টোবর ১২, ২০২১, ১২:০৬ অপরাহ্ণ

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের কাজ সফলভাবে শেষ হওয়ার পর ক্রমবর্ধমান বিদ্যুতের চাহিদা মেটাতে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে আরেকটি নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্ট স্থাপন করার চিন্তা করছে সরকার। ইতোমধ্যে আরেকটি পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনে রাশিয়ার সমর্থন এবং সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১১ অক্টোবর রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পরমাণু শক্তি করপোরেশন রোসাটমের মহাপরিচালক আলেক্সি লিখাচেভ গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাতে এলে প্রধানমন্ত্রী এই সহযোগীতা চান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা দেশের দক্ষিণাঞ্চলে আরেকটি পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করতে চাই এবং এ ব্যাপারে রাশিয়ার অব্যাহত সহযোগিতার প্রয়োজন। এসময় আলেক্সি লিখাচেভ বলেন, বাংলাদেশ এবং রাশিয়ার পারস্পরিক সহযোগিতা পারমাণবিক ক্ষেত্রে প্রবেশ করেছে এবং ২০২৩ সালের মধ্যে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তিধর দেশে পরিণত হবে। আরএনপিপি পরিচালনার জন্য তারা বাংলাদেশিদের প্রশিক্ষণ দেবেন এবং বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাতে তাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

এর আগে ১০ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, ‘আরেকটি পাওয়ার প্লান্ট আমরা করব। আমার ইচ্ছা পদ্মার ওপারেই অর্থাৎ দক্ষিণাঞ্চলে করার। আমরা জায়গা খুঁজছি এবং আশা করি, এ ব্যাপারে খুব একটা অসুবিধা হবে না। এখানে যদি আরেকটি নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্ট আমরা করতে পারি, তাহলে বিদ্যুতের জন্য আমাদের আর অসুবিধা হবে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ পরমাণুবিশ্বে প্রবেশ করেছে। আমরা পরমাণুশক্তিকে শান্তির জন্য ব্যবহার করছি। পরমাণুশক্তিকে কাজে লাগিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনের মাধ্যমে দেশের উন্নয়নকে আরো এগিয়ে নিতে চাই, সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

বর্তমানে বিশ্বে মোট ৩৩টি দেশ পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদন করছে। বাংলাদেশ আগামী ২০২৩ সালে এসব দেশের কাতারে যোগ দিচ্ছে। পরমাণুশক্তির শান্তিপূর্ণ ব্যবহারকারী দেশের তালিকায় রূপপুর প্রকল্পে প্রেসার ভেসেল স্থাপনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ আরো অনেক দূর এগিয়ে গেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

two × 5 =