Templates by BIGtheme NET
৯ জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৫ পৌষ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৫ জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

কেন যুক্তরাষ্ট্রে লবিস্ট নিয়োগ?

প্রকাশের সময়: জানুয়ারি ৯, ২০২২, ৬:২৮ অপরাহ্ণ

সম্প্রতি নেত্র নিউজ নামের একটি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে ২০১৪ সাল থেকে আওয়ামী লীগ সরকার মার্কিন সরকারের সঙ্গে লবিয়িং এর জন্য ২৩ লাখ ডলার ব্যয় করেছে। এ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য প্রমাণও তারা প্রকাশ করেছে।

খবরটি প্রকাশে এমন ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে, যাতে মনে হতে পারে বাংলাদেশ সরকারের একটি বড় অপকর্মের খবর তারা উদঘাটন করেছে। এর সঙ্গে কারা কারা জড়িত আছে তাদের নামও বলা হয়েছে।

কিন্তু আদতে এটি কোন গোপন সংবাদ নয় এবং কোন অপরাধও নয়। বিশ্বের অন্তত শ খানেক দেশ ও প্রতিষ্ঠান নানান কারণে যুক্তরাষ্ট্রে লবিয়িস্ট নিয়োগ করে। রীতিমত লাইসেন্স নিয়ে, মার্কিন সরকারকে ট্যাক্স দিয়ে এসব প্রতিষ্ঠান চলে। অর্থাৎ এটি বেআইনি কিছু নয়। লবিয়িস্ট নিয়োগ বৈশ্বিক রাজনীতি ও কূটনীতিতে একটি নিত্যদিনের ঘটনা।

সম্প্রতি ভারত সরকার ফ্রান্স থেকে যেই রাফায়েল যুদ্ধ বিমানগুলো কিনেছে সেটিও লবিয়িস্ট ফার্মের মাধ্যমেই। এছাড়া বিভিন্ন আন্তর্জাতিক, সামরিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি, সম্পর্কোন্নয়নসহ বিভিন্ন কাজ করে এসব লবিয়িস্ট প্রতিষ্ঠান।

নেত্র নিউজের দেয়া লিংকে গিয়েই দেখা যায় বিশ্বের অন্যান্য দেশ বিভিন্ন কাজে লবিয়িস্ট নিয়োগে কত টাকা ব্যয় করেছে। তাদের তুলনায় বাংলাদেশের খরচই সবচেয়ে কম দেখা গেছে।

লবিয়িস্ট প্রতিষ্ঠানকে কোন দেশ কত টাকা দিচ্ছে মার্কিন আইন অনুযায়ী প্রতিবছর সেটির একটি হিসেব দিতে হয়। মার্কিন সরকার এটি জনসম্মুখে প্রকাশ করে।

তেমনই একটি প্রতিষ্ঠানের নাম বিজিআর ইন্টারন্যাশনাল, যারা বাংলাদেশের হয়ে কাজ করছে। বিজিআর ২০২১ সালে মার্কিন সরকারকে যেই হিসেব দাখিল করেছে সেটি প্রকাশিত হয়েছে গুগল ইনশিয়েটিভ নামের সংবাদ মাধ্যমে। আর সেই সংবাদটিই নেত্র নিউজ ‘তাদের আবিস্কৃত অনুসন্ধানী রিপোর্ট’ এর মতো করে প্রকাশ করেছে।

নেত্র নিউজের খবরের শেষ অংশে অত্যন্ত হাস্যকরভাবে বলা হয়েছে, লবিয়িং কার্যক্রমের বিস্তারিত জানতে চেয়ে বিজিআর ও ফ্রিডল্যান্ডের কনসাল্টিং গ্রুপকে প্রশ্ন পাঠানো হলেও, তারা কোনো জবাব দেয়নি।

এটিও খুব স্বাভাবিক বিষয়। লবিয়িং ফার্ম শুধু বাৎসরিক একটি রিপোর্টই জনসম্মুখে প্রকাশ করে। কিন্তু কোন দেশ তাদের সাথে কোন বিষয়ে লবিয়িং করছে সেটির বিস্তারিত খুঁটিনাটি কখনোই প্রকাশ করবে না।

বাংলাদেশ কেন লবিয়িং করে?
বাংলাদেশ শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই বছরে ৭শ কোটি ডলারের পোশাক রপ্তানি করে। পোশাক ছাড়াও দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্যে ও ভূ-আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে সবচেয়ে বড় অংশীদার যুক্তরাষ্ট্র। তাই যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশের সুসম্পর্ক রাখা জরুরি।

বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, দুই দেশের সম্পর্কে একটু তারতম্য হলেই বাণিজ্য ও কূটনৈতিক ক্ষেত্রে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। কিছু মহল এই সম্পর্কটি নষ্ট করার জন্য ক্রমাগত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তাই এই সম্পর্কটি যেন কেউ নষ্ট করে দিতে না পারে সেজন্য লবিয়িস্ট নিয়োগ করে রাখা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

1 × 3 =