Templates by BIGtheme NET
১১ জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৭ পৌষ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ৭ জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

বেগম জিয়াকে নিয়ে নাটকের সমাপ্তি?

প্রকাশের সময়: জানুয়ারি ১১, ২০২২, ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বিএনপি মনে করেছিল বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতাকে ঘিরে নাটকের মাধ্যমে আন্দোলন জমিয়ে তুলবে। কিন্তু গতকাল রাতে বেগম খালেদা জিয়াকে সিসিইউ থেকে কেবিনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে অনেকটাই উন্নত হয়েছে বলে এভারকেয়ার হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। এভারকেয়ার হাসপাতাল এর সূত্র বলছে যে, সিসিইউতে থাকার মত খারাপ অবস্থা তার নেই জন্যই তাকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে। তার অবস্থা আরেকটু উন্নতি হলে তাকে বাড়িতে পাঠানো হবে। বেগম খালেদা জিয়া লিভার সিরোসিসে ভুগলেও এটি দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসা প্রয়োজন এবং এখনো সেই অসুখটি কোন জটিল রূপ ধারণ করেনি বলেই এভারকেয়ার হাসপাতাল সূত্র থেকে বলা হয়েছে। এর ফলে বিএনপির আন্দোলন রাখাল বালকের গল্পের মত হয়েছে।

আমাদের নিশ্চয়ই রাখাল বালকের গল্পের কথা মনে আছে যে, একটি রাখাল গরু চরাতে যেত এবং প্রতিদিন সে বাঘ এলো, বাঘ এলো বলে চিৎকার করতো। তার এই কথা শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে আসতো বাঘ থেকে তাকে উদ্ধার করার জন্য। তখন রাখাল বালক হেসে বলতো যে, সে এমনিই এটি বলেছেন। কিন্তু একদিন সত্যি সত্যি বাঘ এলো এবং তখন আর কেউ রাখাল বালককে সাহায্য করার জন্য এগিয়ে এলো না। বিএনপির অবস্থা হয়েছে এরকমই। বিএনপি প্রতিদিন বেগম খালেদা জিয়া মৃত্যুশয্যায়, মুমুর্ষ ইত্যাদি বলতে বলতে এমন এক অবস্থায় নিয়ে গেছে যে সাধারণ মানুষের মধ্যে মনে হয়েছিল যে, বেগম খালেদা জিয়া বোধহয় মৃত্যু পথযাত্রী, যেকোনো সময় বোধহয় তার মৃত্যু হতে পারে। কিন্তু এখন যখন তাকে কেবিনে নিয়ে যাওয়া হলো তখন বিএনপির বিড়াল বেরিয়ে গেল, সেই রাখাল বালকের মতই অবস্থা হলো বিএনপি। অর্থাৎ বিএনপি যে এতদিন বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে সস্তা রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করেছিল এবং বেগম খালেদা জিয়ার অসুখকে ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে বাড়িয়ে এমন একটা পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল যেন বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কথা বিশ্বাস করে আওয়ামী লীগ সরকার শেষ পর্যন্ত তাকে বিদেশে পাঠাতে সম্মত হয়। কিন্তু সরকার পুরো ব্যাপারটি জানতো এবং সরকার জানত যে, বেগম খালেদা জিয়া অসুস্থতার মাত্রা কতটুকু এবং তার কি কি ধরনের চিকিৎসা হচ্ছে। তাই সরকার বিএনপির এই আতঙ্ক বার্তায় কান দেয়নি।

সাধারণ মানুষও গত দুই মাসে বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে বিভিন্ন রকম কথাবার্তা শুনেছে এবং একপর্যায়ে তারা বুঝতে পেরেছে যে বিএনপির পক্ষ থেকে অসুস্থতার যে চিত্র উপস্থাপন করা হচ্ছে বাস্তব চিত্র অতটা ভয়ঙ্কর নয়। এ কারণেই তারা বিষয়টি থেকে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে। এখন যখন বেগম খালেদা জিয়াকে সিসিইউ থেকে কেবিনে নিয়ে আসা হলো, তখন বিএনপি নেতারা কি বলবেন? গত কিছুদিন ধরে বিএনপি লাগাতার আন্দোলন করছে বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে নেয়ার দাবিতে। বিএনপি নেতারা বলছেন, বেগম খালেদা জিয়া এখন মুমুর্ষ, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। মৃত্যুর সঙ্গে যদি পাঞ্জা লড়া একটা মানুষ সিসিইউ থেকে কেবিনে চলে আসেন, তখন বিএনপি কি বলবে? এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর বিএনপি কিভাবে দিবে? বিএনপি যে বিভিন্ন সময়ে মিথ্যাচারের রাজনীতি করেছে এবং সস্তা জনপ্রিয়তার আশায় বিভিন্ন সময়ে মিথ্যাচারের অপরাজনীতির আশ্রয় নিয়েছে এটি হলো তার আরেকটি সর্বশেষ উদাহরণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

seventeen + five =